meta name="google-site-verification" content="xjowQsHoQ-Mvf4cvToRhR1jibQ34TLi69aHBFwC5vc" /> ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড এর গুনাগুণ, অনেক রোগের একটাই সমাধান - HEALTH PROBLEM SOLVE

ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড এর গুনাগুণ, অনেক রোগের একটাই সমাধান

 বিভিন্ন রোগের একটাই সমাধান ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড|এর গুণাগুণ বলে শেষ করা যাবে না |এর বিশেষ কয়েকটি গুণাগুণ ও কোন কোন খাদ্যে এটি পাওয়া যায় তার সম্বন্ধে আমরা জানবো |


১.শরীরের ফোলা ভাব কমায়:




সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ওমেগা থ্রি যুক্ত খাবার খেলে শরীরের বাড়তি ফোলা ভাব কমে যায়। পেট ভার হওয়ার সমস্যাও খুব একটা দেখা যায় না। দেহের ‘ওয়াটার ওয়েট’ নিয়ন্ত্রণে রাখে ওমেগা থ্রি।



২.খিদে নিয়ন্ত্রণ:



খুব বেশি খিদের মুখে খেতে বসলে বেশি খাবার খাওয়া হয়ে যায়। তাই বার বার অল্প খাবার খাওয়ার উপদেশ দেন ডায়েটিশিয়ানরা। কিন্তু অনেকের ‘হাঙ্গার প্যাং’ বেশি হয়। তাঁরা যদি মিল’এ ওমেগা থ্রি যুক্ত খাবারের পরিমাণ বাড়িয়ে দেন, তাহলে ঘন ঘন খিদে পাবে না।



৩.মেটাবলিজ্‌ম রেট বাড়ায়:



বেশি পরিমাণে ওমেগা থ্রি শরীরে গেলে সাইটোকিন বা ভুঁড়ি বাড়ানোর কম্পাউন্ড ফ্যাট কম তৈরি হয়। এর ফলে শরীরের মেটাবলিজ্‌ম রেটও বেড়ে যায়।


৪.ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ:



ওমেগা থ্রি রক্তে গ্লুকোজ লেভেল নিয়ন্ত্রণে রাখে। তাই ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও কমে যায়।



৫.রোগা হতে  সাহায্য করে :


যাঁরা নিয়মিত শরীরচর্চা করেন, তাঁরা যদি ডায়েটে ওমেগা থ্রি যুক্ত খাবার বেশি রাখেন, তাহলে এক্সারসাইজের ফল বেশি তাড়াতাড়ি পাবেন।



৬.হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়:




হৃদরোগে আক্রান্ত যাঁরা, তাঁদের ডায়েটে বেশি পরিমাণে ওমেগা থ্রি যুক্ত খাবার রাখতে বলেন বিশেষজ্ঞেরা। কারণ এই সুপারফুডে হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা কমানোর গুণ রয়েছে।


৭.বাচ্চাদের মানসিক বিকাশ:



বাচ্চাদের বেশি করে মাছের তেল খেতে বলা হয়। কারণ, মাছের তেলে ওমেগা থ্রি থাকে। মানসিক বিকাশের জন্য ওমেগা থ্রি খুবই উপকারী। অন্তঃসত্ত্বা মহিলারাও যদি খাবারে ওমেগা থ্রি’য়ের পরিমাণ বাড়িয়ে দেন, তাহলে তা হবু সন্তানদের জন্য উপকারী।



ওমেগা থ্রি যুক্ত কিছু খাবার :


1. স্যামন মাছ:


স্যামন মাছের গুণ অনেক। হাই কোয়ালিটি প্রোটিন ছাড়াও এতে ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম এবং ভিটামিন বি রয়েছে। পাশাপাশি স্যামন মাছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডও রয়েছে। আধখানা ফিলে’তে প্রায় ৪২০৩ মিলিগ্রাম ওমেগা থ্রি পাওয়া যায়।



2. সয়াবিন:



নিরামিষাশীদের জন্য ভাল প্রোটিন সোর্স সয়াবিন। অনেকেই জানেন না, এতে ওমেগা থ্রিও থাকে। তবে সয়াবিনে ওমেগা সিক্সের পরিমাণও ভালই। শরীরে ওমেগা সিক্সের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে অনেক রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই বুঝেশুনে খাওয়াই ভাল।

3. মুসুর ডাল:

মুসুর ডালের গুণ অনেক। মেদ ঝরানোর সময় কার্ব্‌স কম খেয়ে বেশি পরিমাণে ডাল খেতে বলা হয়। শরীরে প্রোটিনও যায়। আবার মেটাবলিজ‌্‌ম রেটও বাড়ায়। মুসুর ডালেও ওমেগা থ্রি রয়েছে। তবে
অল্প পরিমাণে।


4.  আখরোট:



খিদে মেটানোর জন্য জাঙ্কফুডের বদলে কয়েকটা ওয়ালনাট খান। এতে পেটও ভরবে। আবার ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন ই আর ওমেগা থ্রি’ও শরীরে যাবে।



5. পালংশাক:


খেতে ভাল না লাগলেও পালংশাকের গুণ অনেক। ভিটামিনের পাশাপাশি ওমেগা থ্রি’ও রয়েছে এতে। কিন্তু প্রচুর মাখন দিয়ে পালং পনির না খেয়ে স্যালাড হিসেবে খাওয়ার চেষ্টা করুন। ফল বেশি পাবেন।

No comments

Theme images by ImagesbyTrista. Powered by Blogger.